IMG-LOGO
বাড়ি রাজ্য আমাদের বাংলায় ৪০ শতাংশ বেকারি কমেছে : কোচবিহারের জনসভায় মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়
রাজ্য

আমাদের বাংলায় ৪০ শতাংশ বেকারি কমেছে : কোচবিহারের জনসভায় মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়

by Admin - 2021-04-07 09:27:22 1 Views 0 Comment
IMG

কলকাতা, ৭ এপ্রিল: সারা ভারতে ২ কোটি বেকার বেড়েছে। আমাদের বাংলায় ৪০ শতাংশ বেকারি কমেছে। দারিদ্র্য কমেছে। বুধবার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় কোচবিহার উত্তরে নির্বাচনী জনসভায় এই মন্তব্য করেন। কী কী উন্নয়ন করেছে তাঁর সরকার সভা থেকে তুলে ধরেন মমতা। এই সভা থেকেই বিজেপি-র বিরুদ্ধে তোপ দাগেন তিনি।  বলেন, তৃণমূলনেত্রী বলেন, আমরা জিতলে তফশিলি জাতি, উপজাতি সম্প্রদায়ের মায়েরা ১ হাজার করে হাতখরচ পাবেন। অন্য ক্যাটাগরির যাঁরা আছে তাঁরাও ৫০০ টাকা পাবেন। সরকারি, বেসরকারি ক্ষেত্রে ৫ লক্ষ ছেলেমেয়ের চাকরি হবে। আপনার বাড়িতে রেশন পৌঁছে দেওয়া হবে।বিনা পয়সায় খাদ্য, চিকিৎসা, শিক্ষা, পানীয় জল, কাজ পাবেন। ১০০ দিনের কাজ দুশো দিনের হতে পারে।নবম শ্রেণির ছেলেমেয়েরা সবুজ সাথীর সাইকেল পাবে বিনামূল্যে। অগস্ট মাসে আবার ‘দুয়ারে সরকার’ হবে। যদি কেউ স্বাস্থ্য সাথী কার্ড না পান, সব পেয়ে যাবেন। আমি এনপিআর, এনআরসি করতে দেব না। বাংলার সব মানুষ ভারতের নাগরিক।আমি একা জিতে তো লাভ নেই। আমার ভোট হয়ে গেছে। আমি জিতবই। আমি যেখানে দাঁড়াই জিতবই। আমি এখানে দাঁড়ালেও আপনারা আমাকে ভোট দিতেন। আমি একা জিতে তো সরকার গঠন করতে পারব না। ২৯৪-এর মধ্যে ২০০ ন্যূনতম চাই। আমাদের ২০০ আসন পার করতে হবে।মুখ্যমন্ত্রী বলেন, মা বোনেদের ভোটকে ভয় পাচ্ছে ওরা। শাসন করতে হয়। আমাকে শাসন করলে, আমি তোমায় শোষণ করব না। পাল্টা শাসন করব। আমি বন্দুক দিয়ে লোক খুন করব না, বোমা মারব না। মানুষকে বোঝাব আপনার একটা ভোটের দাম বন্দুক এবং বোমার থেকে অনেক দাম বেশি। শান্ত হওয়া ভাল, কিন্তু কেউ দুষ্টুমি করে তাঁকে দুটো থাপ্প্ড় দেওয়া ভাল।মেয়েরা যাতে ভোট দিতে না পারে গ্রামে গ্রামে কেন্দ্রীয় বাহিনী এসে দাঁড়িয়েছে। বলেছে ভোট দেওয়া যাবে না। এই মন্তব্য করে মুখ্যমন্ত্রী বলেন, “আরামবাগে এত অত্যাচার করেছে, সুজাতা মণ্ডলকে বাঁশ দিয়ে পিটিয়েছে। বুথ প্রেসিডেন্টকে খুন করেছে। তিন দফায় ৯০-এর বেশি আসনে ভোট হয়ে গিয়েছে। জেনে রাখবেন তাতে আমরা কিন্তু জিতছি।
খুনি হয়ে গেছেন এখন ধনী।“
মুখ্যমন্ত্রী বলেন, “আপনাদের এখানে বিনয় বর্মণের বিরুদ্ধে যিনি দাঁঁড়িয়েছেন, তিনি খুনের অভিযোগে জেলে ছিলেন। পদাতিক থেকে শুরু করে উত্তরবঙ্গ এক্সপ্রেস আমার করে দেওয়া। শতাব্দী, কামাখ্যা এক্সপ্রেস আমার করে দেওয়া। বাংলাদেশের সঙ্গে কথা বলে ছিটমহল করেছি। এরা (বিজেপি) এত মিথ্যা কথা বলে। রাজবংশীদের ধোঁকা দিয়েছে। নারায়ণী ব্যাটেলিয়ন করে দেব বলেছেন প্রধানমন্ত্রী, কিন্তু করেছে কি? আমি কিন্তু নারায়ণী ব্যাটেলিয়ন করে দিয়েছি কোচবিহারে।